সর্বশেষ সংবাদ
Home / রাজনীতি / ফরিদগঞ্জে নৌকা আসলে তুমি কার ? একক প্রার্থী নিয়ে ফুরফুরে আছে বিএনপি
ফেইসবুক থেকে সংগৃহীত

ফরিদগঞ্জে নৌকা আসলে তুমি কার ? একক প্রার্থী নিয়ে ফুরফুরে আছে বিএনপি

এমকে মানিক পাঠান
চাঁদপুর ৪ (ফরিদগঞ্জ ) আসনে আওয়াম লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হেভিওয়েট দুই প্রার্থীর দাখিল করা মনোনয়ন বৈধ ঘোষনা করার পর দলের নেতাকর্মীরা প্রশ্ন তুলে বলছে ফরিদগঞ্জে নৌকা আসলে তুমি কার ? ফরিদগঞ্জ আসনে হেভিওয়েট এই দুই প্রার্থী হলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি বর্তমানে ফরিদগঞ্জের এমপি ডঃ মোঃ শামছুল হক ভুইয়া অপর জন হলেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক মুহাম্মদ শফিকুর রহমান। দলের সবাই এখন দলের নেত্রী প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানার জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনছ্নে।

এই আসনে এবার প্রথমে দলের মনোনয়ন পত্র দেয়া হয়েছিল একমাত্র ডঃ মোহাম্মদ শামছুল হক ভুইয়া এমপিকে। মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ মুহুর্তে অবশ্য আওয়ামী লীগের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিক শফিকুর রহমানকে গনভবনে ডেকে তার হাতে দলীয় মনোনয়ন পত্র তুলে দেন। কার্যত এখন ফরিদগঞ্জ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী আছেন ওই দুজন। আবার গত রোববার মনোনয়ন পত্র যাছাই বাচাইতে এই দুজনেরই মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করা হয়েছে। এমন অবস্থায় ফরিদগঞ্জ আসনে মূলত নৌকার মাঝি কে হচ্ছেন ? বা কার হাতে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা নৌকা তুলে দেন তা নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে চুল ছেড়া বিচার বিশ্লেষন।

ফেইসবুক থেকে সংগৃহীত

তবে অনেকেইে বলছে দলের স্বার্থে একজন পরিশ্রমী সুচিন্তিত রাজনীতিবিদ হিসেবে বর্তমান এমপি ডঃ শামছুল হক ভুইয়ার খ্যাতি রয়েছে সবার কাছে। অপরদিকে সিনিয়র সাংবাদিক শফিকুর রহমানও সবার কাছে একজন ক্লিন ইমেজের সৎ ও যোগ্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছে তার সুনাম । তবে গত দুটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাংবাদিক শফিকুর রহমান আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে দলের মনোনয়ন পেয়েছিলেন। এবারো তিনি পূর্বের ন্যায় দলের মনোনয়ন পেলে তা হবে সাংবাদিক শফিকুর রহমানের ক্ষেত্রে মনোনয়ন পাওয়া এক নুতন চমক ।

দলীয় সুত্রে জানা গেছে, কৌশলগত কারনে এবারই ফরিদগঞ্জে আওয়ামী লীগের ওই দুজনকে দলীয় মনোনয়ত পত্র তুলে দেয়া হয়েছে। দলের নীতি নির্ধারকদের ধারনা ছিল বাছাইতে একজনের মনোনয়ন পত্র বাতিল হলে অপর জন একক প্রাথী হিসেবে থেকে যাবে। কিন্তু সব কিছুই বুমেড়াং হয়ে যাওয়ায় এখন ওই দুই প্রার্থীর দ্বন্ধ মিটিয়ে ঐক্য না হলে এবারের ভোট যুদ্ধে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করা নিয়ে দলের নেতাকর্মীরা রয়েছে দ্বিধাদ্ধন্ধে। সব দ্বন্ধ মিটিয়ে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা চায় এবারের ভোট যুদ্ধে দলীয় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন পরিক্রমা ভোটারের সামনে এনে নৌকা প্রতীকের জয় নিশ্চিত করেই এ আসনটি শেখ হাসিনাকে উপহার দিবে।

এদিকে ওই দুই প্রার্থীর অনুসারী নেতাকর্মীরা তাদের যারযার পছন্দের দুই প্রাথীর পক্ষে নৌকার ভোট চেয়ে ফ্ইেসবুকে তাদের নিজস্ব আইডি থেকে শেখ হাসিনার ছবি ও প্রার্থীর ছবি সম্বলিত ছবি দিয়ে বিভিন্ন পোষ্টার ছেড়েছে। এমন অবস্থায় দলের নৌকা প্রেমিকরা শুধু বলে যাচ্ছে নৌকা যাবে যার হাতে আমরা থাকবো তার সাথে।

এদিকে ফরিদগঞ্জ আসনটি বিএনপির অধূষিত ভোট ব্যাংক হিসেবে পরিচিতি থাকলেও নুতন চমক দেখিয়ে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন পাওয়া শিল্পপতি এম এ হান্নান তার জয় নিশ্চিত করা নিয়ে রয়েছে এবার ফুরফুরে মেজাজে। শিল্পপতি এম এ হান্নান ধানের শীষের জয় নিশ্চিত করতে এখন দলের নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করা ছাড়াও ভোট যুদ্ধের বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন বলে দলীয় নেতাকর্মীরা জানিয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডা. দীপু মনিকে বিজয়ী করার লক্ষে হাইমচর উপজেলা আ’লীগের সহ- সভাপতি মোঃ শাহজাহান মিয়ার উদ্দ্যোগে উঠান বৈঠক মহিলা সমাবেশ নির্বাচনী আলোচনা সভা

মোঃ হোসেন গাজী,হাইমচর। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ১২ ডিসেম্বর বিকাল ৩ ...