সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / মতলব উত্তরে অগ্নিকান্ডে বসত ঘর ভস্মিভুত

মতলব উত্তরে অগ্নিকান্ডে বসত ঘর ভস্মিভুত

খান মোহাম্মদ কামাল,মতলব (চাঁদপুর) সংবাদদাতাঃ
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ৬নং কলাকান্দা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মিলারচর গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অগ্নিকান্ডে একটি বসত ঘর ভস্মিভুত হয়েছে। গত শনিবার ২টার সময় উপজেলার কলাকান্দা গ্রামের আঃ সাত্তার মিয়াজীর ছেলে আঃ আজিজ মিয়াজীর ঘরে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এসসময় বসত ঘরে থাকা জিনিসপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত আঃ সাত্তার মিয়াজীর ছেলে আঃ আজিজ মিয়াজী ঢাকায় ছিলেন। তিনি অবিবাহিত। এদিকে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন,স্থানীয় করাকান্দা ইউপি চেয়ারম্যান আঃ ছোবহান সরকার সুভা। রোববার সকালে তিনি ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় ইউনিয়রন পরিষদের সচিব শ্যামল চন্দ্র দাস ও সাংবাদিকসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শনকালে ইউপি চেয়ারম্যান আঃ ছোবহান সরকার সুভা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলেন। এসময় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে সরকারের এবং তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে পূর্নবাসন আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি বলেন, এ ঘটনাটির সর্ম্পকে খোজখবর নেওয়া হচ্ছে। তাদের পারিবারিক যে বিরোধ সেটি শান্তিপূর্নভাবে মিমাংসা করা হবে। আমি ইউনিয়নবাসীর সুখে,দুঃখে সবসময় পাশে ছিলাম আজীবন পাশে থাকবো ইনশাল্লাহ।

সরেজমিনে জানাযায়, শনিবার রাত ২টার সময় কে বা কারা উপজেলার মিলারচর গ্রামের আঃ সাত্তার মিয়াজীর ছেলে আঃ আজিজ মিয়াজীর ঘরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ অীগ্নকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বসত ঘরের সাথে মিলত থাকা মৃত আলী আকবর মিয়াজীর বসত ঘরটিও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

মিলারচর গ্রামের মিয়াজি বাড়িতে আঃ সাত্তার মিয়াজীর ছেলে আঃ আজিজ, মোঃ তফাজ্জল মিয়াজী ও আলী আকবর মিয়াজীর বসবাস।
দীর্ঘদিন ধরেই তাদের মধ্যে পারিবারিক ঝগড়া-বিবাদ ও কলহ বিদ্যমান রয়েছে। এ নিয়ে ওই বাড়িতে বহুদিন ধরেই বহিরাগত যুবকদের আনাগোনা ছিলো বলে স্থানীয়রা জানায়। এ অগ্নিকান্ড ঘটনাটি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঘটেছে বলে প্রাথমিক ধারনা করছে স্থানীয়রা।
অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বসত ঘরের সাথে মিলত থাকা মৃত আলী আকবর মিয়াজীর বসত ঘরটিও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মৃত আলী আকবর মিয়াজীর স্ত্রী লিপি বেগম জানান, শনিবার রাত ২টার সময় আগুনের সূত্রপাত দেখে প্রথমে আমার মেয়ে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার দেয়। এরপর আমি এসে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন আগুন লেগেছে মাইকিং করলে স্থানীয় লোকজন এসে আগুন নিভাতে সক্ষম হয়। ততক্ষনে ঘরটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তিনি আরওও জানান, অগ্নিকান্ডে ভস্মিভুত ঘরটির সাথেই ছিলো আমার বসত ঘর। আমরা সবাই ঘরে ছিলাম। এলাকার লোকজন দ্রুত ছুটে না আসলে আমার বসত ঘরটি সম্পন্ন পুড়ে ছাই হয়ে যেত। তিনি জানান, আমি স্বামী হারা হতভাগ্য পরিবার। আমি সন্তানদের নিয়ে স্বামীর ভিটায় বসবাস করছি। দীর্ঘ দিন ধরে আমার উপর অত্যাচার চলছে। কয়েকবার বহিরাগত বখাটে যুবকসহ বহিরাগত লোকদের আক্রমনের শিকার হয়েছি। অগ্নিকান্ডে ভস্মিভুত ঘরটির সাথে যুক্ত আমার বসত ঘর। এআি ঘরটিতে আমি সন্তান নিয়ে রাতে ঘুমাই। আমাদেরকে ক্ষতিগ্রস্ত করার অসৎ উদ্দেশ্যে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কেই এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে। তারা ধারনা করেছে ওই ঘরটি ভুসস্মভুত হলে আমার ঘরটিও ভস্মিভুত হবে। এমনটা ধারনা করেই যে ঘরটিতে কেউ থাকেন না সে ঘরটিতে অগ্নিকান্ড ঘটনার ঘটনা ঘটিয়েছে। আল্লাহপাক আমাদের রক্ষা করেছেন। তবে আমার ঘরটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ে গরুর মাংসে “আল্লাহু” লেখা

ঠাকুরগাঁও সদর প্রতিনিধি মোঃ আবুল হাসান ২০/০৭/২০১৯ রোজ শনিবার সকালে ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ায় ...