সর্বশেষ সংবাদ
Home / জাতীয় / শরণখোলা উপজেলার উত্তর কদমতলা গ্রামে একই পরিবারের দুই কন্যা সন্তানের মৃত্যু

শরণখোলা উপজেলার উত্তর কদমতলা গ্রামে একই পরিবারের দুই কন্যা সন্তানের মৃত্যু

নাজমুল ইসলাম শরণখোলা প্রতিনিধিঃ
পরিবারের দাবী মেঘনা শশুর বাড়ির নির্যাতনে অসুস্থ হয়ে মারা গেছে।সেই কারনে ছোট মেয়ে বৈদ্যুতিক পাখা চালেতে গিয়ে বড় বোনের মৃত্যুতে ধিক হারিয়ে বিদ্যুৎ পিষ্ট হয়ে মারা যায়
এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা যায়,প্রায় ১৪ মাস আগে ৩ নং রায়েন্দা ইউনিয়নের উত্তর কদমতলা গ্রামের নিবাসী আলম খানের কন্যা মেঘনা বেগম কে ২ নং ইউনিয়নের পূর্ব খোন্তাকাটা গ্রামের সেলিম তালুকদার এর কাছে বিবাহ দেন।কিন্তু বিবাহের পর থেকেই আত্মকলহ সৃষ্টি হয়। মেয়েটির পরিবারের আত্মীয় স্বজনরা জানান দীর্ঘদিন যাবৎ মেয়েটিকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবিতে কয়েকবার মারধর করেন। তাকে অসুস্থ অবস্থায় শশুর বাড়ি থেকে প্রায় দুই মাস আগে পিতা আলম খানের বাড়িতে চিকিৎসা দেয়ার জন্য নিয়ে আসেন ঐ অবস্থায় ডাক্তারের চিকিৎসা নেন।
আলম খান বলেন,আমার মেয়েটিকে ওরা এমন ভাবে মারধর করেছে কোন চিকিৎসায় কাজ হলোনা,মেয়েটি আমার ধুকে ধুকে আজ ভোরে  মারা যায়।এই খবর শুনে ঐ বাড়িতে আত্মীয়স্বজন সহ এলাকাবাসী উপস্থিত হয়।
এক পর্যায়ে ৫ম শ্রেনীতে পড়ুয়া তার ছোট কন্যা তামান্না গরম বেশী দেখে বৈদ্যুতিক পাখা চালু করতে ঘরের উপরে যায় তখন বিদ্যুৎপিষ্ট হলে ঘরের লোকজন টের পেয়ে তাকে শরনখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার রিপন নাথ তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন।এব্যাপারে তাৎক্ষনিক ভাবে ঘটনা স্থলে শরনখোলা থানা কর্মকর্তাগন সহ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আসাদুজ্জামান ছুটে যান।পরে  মেঘনার পোষ্টমেডাম করার জন্য বাগেরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।
পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

টিপু রাজাকারের রায় আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহীর বোয়ালিয়ার মো. আব্দুস সাত্তার ওরফে টিপু রাজাকারের বিরুদ্ধে একাত্তরে ...