সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / চাঁদপুর জেলা জজের বাসভবনের সীমানা প্রাচীর গণপূর্তবিভাগ কবে উঁচু করবে?

চাঁদপুর জেলা জজের বাসভবনের সীমানা প্রাচীর গণপূর্তবিভাগ কবে উঁচু করবে?

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর জেলা পর্যায়ের সর্বোচ্চ মর্যাদাবান ব্যক্তি জেলা ও দায়রা জজের বাসভবনের সীমানা প্রাচীর এবং সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন পুকুরের গাইড ওয়াল নির্মাণ করে তা গণপূর্তবিভাগ কবে উঁচু করবে এমন নানা প্রশ্ন সচেতনমহলে ঘুরপাক খাচ্ছে!কেননা গত কয়েক বছরে কয়েক বার চাঁদপুর গণপূর্তবিভাগকে এ সংক্রান্ত ব্যবস্থা নিতে তাগিদ দেওয়া হয়।

সর্বশেষ গত জুলাই মাসের ১৪ তারিখও এ সংক্রান্তে ব্যবস্থা নিতে জেলা জজের পক্ষ থেকে চাঁদপুর গণপূর্ত বিভাগকে ১টি দরখাস্তের মাধ্যমে তাগিদ দেওয়া হয়।কিন্তু তবুও কোন অদৃশ্য উদাসীনতায় এ ব্যপারে সমস্যা সমাধানে গণপূর্ত বিভাগ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না? তা নিয়ে নানা আলোচনা সমালোচনার জন্ম নিচ্ছে! এদিকে গেলো কিছুদিন পূর্বে জেলা জজের বাসভবনে চুরির ঘটনা ঘটেছে।আর এই সংবাদটি ঐ সময়ে স্থানীয় পত্র পত্রিকার টক অব দ্যা টাউনে রূপ লাভ করেছিলো।খোঁজ-খবর নিয়ে জানা যায়,জেলা জজ এর বাসভবনে কাটাতারসহ সীমানা প্রাচীর নির্মাণ,পর্যাপ্ত লাইট,সি.সি. ক্যামেরা এবং পুলিশ বক্স স্থাপন প্রসঙ্গে কয়েক দফা লিখিত ও মৌখিকভাবে গণপূর্ত বিভাগ কে ব্যবস্থা নিতে জানানো হয়।

কিন্তু এ ব্যপারে জেনেও না জানার মতো অবস্থায় রয়েছে গণপূর্ত বিভাগ এমন ধরনের অভিযোগ উঠছে।চাঁদপুরের ভারপ্রাপ্ত জজ মিজানুর রহমান ভূইয়া জানান,জেলা জজ স্যারের বাসভবনে গত ৭ জুলাই চুরির ঘটনা ঘটেছে।এ সময় আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনাও ঘটতে পারতো।কেননা জেলা জজ স্যারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সহ মৃত্যুদন্ডের মত কঠিন সাজা প্রায়ই দিতে হয়।এতে আসামী বা এদের পক্ষপাতিত্বদের এমন বিচারের প্রতি নানা ক্ষোব তৈরি হতে পারে।

যেজন্য জেলা জজ স্যারের জিবন প্রতি মূহুর্তে সংশয়ের মধ্যে থাকে।তিনি আরো বলেন,জেলা জজ স্যারের সীমানা প্রাচীর অত্যান্ত নীচু আবার কোন স্থানে ভাঙ্গা।তার ওপর প্রাচীরের তারকাটা মাঝে মাঝে নেই।তাই এই বাসভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ও জরাজীর্ণ এবং চারদিকের সীমানা প্রাচীর অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে।যে কেউ যে কোন সময় সীমানা প্রাচীর টপকে আসা যাওয়া করতে পারবে।যা জেলা জজ স্যার সহ আমাদের অনেক ভাবিয়ে তুলছে।এ ব্যপারে চাঁদপুর গণপূর্ত বিভাগ বিলম্ব না করে ব্যবস্থা নিবে এমনটি প্রত্যাশা করছি।

চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজের নাজির এ টি এম আব্দুল মতিন মোল্লা জানান,জেলা জজ স্যারের বাসভবনে মাত্র ৪ জন পুলিশ পাহারায় থাকে।তাও তারা শুধুমাত্র মূল প্রবেশ পথেই দাঁড়িয়ে থাকে।এতে ভিতরে কেউ প্রাচীর টপকে প্রবেশ করলে তা তারা সনাক্ত করতে পারবে না।তাই সীমানা প্রাচীরের সাথে এ ব্যপারেও ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানাই।সচেতন মহল বলছে,জেলা প্রশাসকের বাস ভবনের নিরাপত্তার সমতুল্য করে জেলা জজের বাসভবন হওয়া চাই।তাহলে চাঁদপুরের বিচার বিভাগীয় ব্যবস্থা নিরাপদ থাকবে।

এ ব্যপারে ২০ আগষ্ট মঙ্গলবার গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাহবুবুর রহমানের সাথে আলাপ হলে তিনি জানান,আমরা বর্তমানে ওই বাসভবনটির পেছনের দিকে মজবুত কাঁটা তারের কার্যক্রম শুরু করেছি।সামনের দিকের জন্য নতুন করে দ্রুত কাজ করার জন্য বরাদ্দ চেয়েছি।বরাদ্দ আসলেই ওনাদের চাহিদার অন্যসব কাজ শুরু করবো।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

স্বপ্নছায়া সামাজিক সংগঠন নামে নতুন সংগঠনের আত্মপ্রকাশ আহ্বায়ক ইকবাল বেপারী, যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল রানা ও রবিন পাটওয়ারী

স্টাফ রিপোর্টার  : স্বপ্নছায়া সামাজিক সংগঠন নামে নতুন সংগঠনের আত্মপ্রকাশ করেছে। সন্ধ্যায় ...