সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / আলোচিত নাগরিকপঞ্জি প্রকাশ হচ্ছে আজ, সতর্ক আসাম

আলোচিত নাগরিকপঞ্জি প্রকাশ হচ্ছে আজ, সতর্ক আসাম

অনলাইন ডেস্ক
কাশ্মীরের পর মোদি সরকারের আরেক বিতর্কিত সিদ্ধান্তকে ঘিরে আসাম রাজ্যে জুড়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সেখানে আজ চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) প্রকাশ করার কথা রয়েছে। এই পদক্ষেপকে ঘিরে ব্যাপক সতর্কতা জারি হয়েছে রাজ্যটিতে। সেখানে ২০ হাজার অতিরিক্ত কেন্দ্রীয় আধাসেনা পাঠানো হয়েছে। রাজ্য জুড়ে টহল দিচ্ছে আসাম রাইফেলস এবং রাজ্য পুলিসের দাঙ্গা প্রতিরোধ বাহিনী। একাধিক স্পর্শকাতর জেলায় ১৪৪ ধারা জারি হচ্ছে বলেও জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো।

নাগরিকপঞ্জি প্রকাশের আগের দিন শুক্রবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকায় মাইকে ঘোষণা করেছে প্রশাসন। সেই ঘোষণায় গুজব ছড়ানোর বিষয়ে আসামের বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। আসাম পুলিশ বলেছে, চিন্তার কারণ নেই, সরকার সবরকম ব্যবস্থা নিয়েছে। এই তালিকা প্রকাশকে ঘিরে কাউকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনেওয়াল। এ অবস্থায় রাজ্যজুড়ে চরম সতর্কতা এবং আশঙ্কা বিরাজ করছে।

আর এই উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যেই আজ শনিবার স্থানীয় সময় সকাল বেলা ১০টা নাগাদ আসামে নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হচ্ছে। ইতিমধ্যেই খসড়া তালিকায় দেখা গিয়েছে ৪১ লক্ষ মানুষ নাগরিকত্ব প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছেন। হাজার হাজার মানুষ রয়েছেন ডিটেনশন ক্যাম্পে।

বস্তুত আসামের এনআরসির দাবি বহুদিনের। রাজীব গান্ধী এবং আসাম গণ পরিষদের মধ্যে হওয়া চুক্তি অনুযায়ী ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের পর যারাই আসামে এসেছে তারা সকলেই অনুপ্রবেশকারী বা বেআইনি নাগরিক। এই মর্মেই এনআরসি তৈরি করতে হবে। এত বছর পর সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আসামের এই তালিকা নির্মাণের মধ্যে একাধিকবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ঘোষণা করেছেন গোটা দেশে চালু হবে এনআরসি, এমনকি পশ্চিমবাংলাতেও।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত আগামীকাল এনআরসি তালিকা প্রকাশের প্রতিক্রিয়া কী হবে, তা নিয়ে চরম আশঙ্কায় রয়েছে বিজেপি ও আসাম সরকারও। কেননা বাতিল পড়াদের ৪১ লাখের ওই তালিকায় দেখা গিয়েছে সিংহভাগই হিন্দু বাঙালি এবং ওই বিপুল পরিমাণ বাঙালি হিন্দুদের মধ্যে বিরাট সংখ্যক আসামেরই প্রকৃত বাসিন্দা বলেই মনে করছে সরকারও। সবথেকে বড় সঙ্কট হল প্রচুর উদাহরণ দেখা যাচ্ছে, একই পরিবারের কেউ তালিকায় আছে, আবার কেউ নেই। যেমন-স্বামী বৈধ নাগরিক, অথচ স্ত্রী প্রমাণের অভাবে ডিটেনশন ক্যাম্পে।

আসামের মুখ্যমন্ত্রী সেই সমস্যা নিয়ে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করে বলেছেন, দরকার হলে আইন সংশোধন করে পুনরায় প্রকৃত নাগরিকরা যাতে বাদ না পড়েন সেটা নিশ্চিত করা হবে।

মুখ্যমন্ত্রী শুক্রবার সোনেওয়াল তালিকা প্রকাশের আগে বলেছেন, এখনই আতঙ্কের কোনও কারণ নেই। চূড়ান্ত তালিকায় নাম না থাকলেও ট্রাইব্যুনালে আবেদনের সুযোগ থাকছে। তাই অশান্তি বা আতঙ্ক ছড়াবেন না।

আজ এনআরসি তালিকা প্রকাশের প্রক্রিয়ার পর সেই বেআইনি নাগরিকদের নিয়ে সরকার কী করবে, এই প্রশ্ন সর্বত্র আলোচিত। ১২০ দিন সময় দেওয়া হবে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আবেদনের জন্য। মোট ১ হাজার এরকম ট্রাইব্যুনাল খোলা হবে বলে সরকার জানিয়েছে। যদিও এখন আছে মাত্র ১০০টি ট্রাইব্যুনাল। সেপ্টেম্বরে আরও ২০০ খোলা হবে। আসামের বিজেপি দলটি শেষ মুহূর্তে তালিকা প্রকাশ পিছিয়ে দেওয়ার মরিয়া চেষ্টা করেছিল। কারণ কংগ্রেস, অসম গণ পরিষদ, এআইইউডিএফ তো বটেই, শাসক দল হয়েও বিজেপি শেষ পর্যন্ত স্বীকার করেছে যে, প্রচুর হিন্দু বাঙালি প্রকৃত নাগরিকও ঢুকে পড়েছেন বেআইনি তালিকায়। আর সেটা যদি হয় তাহলে ব্যাপক ছড়িয়ে পড়বে কেবল আসাম নয়, গোটা ভারত জুড়েই। শেষ পর্যন্ত মোদি সরকার এই বিশৃঙ্খলা সামাল দিতে পারবে কিনা তা নিয়েও আলোচনা চলছে।

কেননা গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের ওপর থেকে বিশেষ অবস্থা তুলে নেয়ার পর সেখানকার বিক্ষুব্ধ পরিস্থিতি সামলাতে গিয়ে নাজেহাল হচ্ছে ভারত সরকার। এ নিয়ে দেশে বিদেশে নানামুখি চাপে রয়েছে নয়াদিল্লি। চীন ও যুক্তরাষ্টসহ একাধিক দেশ এ নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়েছে। শুক্রবার বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে কাশ্মীরি জনতার ওপর ভারতীয় সেনাদের পাশবিক নির্যাতনের খবর প্রকাশিত হয়েছে। এ অবস্থায় আসামের এনআরসি নিয়ে নতুন সঙ্কটে পড়তে চলেছেন মোদি তথা শাসক দল বিজেপি।

নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ৪১ লাখ

সূত্র: বর্তমান

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মার্কিন সেনাবাহিনীতে বাংলাদেশি আফিয়া

অনলাইন ডেস্ক বিশ্বব্যাপী পুরুষের সাথে সমান তালে এগিয়ে চলছে নারীরা। অবদান রাখছে ...