সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / সমাজের পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠীকেও সমানতালে এগিয়ে নিতে হবে: ডিআইজি হাবিবুর রহমান 

সমাজের পিছিয়েপড়া জনগোষ্ঠীকেও সমানতালে এগিয়ে নিতে হবে: ডিআইজি হাবিবুর রহমান 

আলমাস হোসেনঃ  হিজড়ারা যেন নিজ পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হতে না পারে, সেজন্য আইন দরকার। দেশের সংবিধান অনুযায়ী হিজড়াদের প্রতি কোনো ধরনের বৈষম্য করা যাবে না। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। হিজড়া সম্প্রদায় তাদের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত। পরিবারে তারা অবহেলিত। লেখাপড়া ও কাজের সুযোগও তারা পায় না।
এ জন্য হিজড়া সম্প্রদায়ের পারিবারিক উত্তরাধিকার আইনের সুনির্দিষ্ট একটি ব্যাখ্যা পাওয়া জরুরি। একই সঙ্গে কোনো হিজড়া যেন নিজ পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হতে না পারে, সেজন্য একটি আইনি নির্দেশনা ও আইন প্রণয়ন হওয়া দরকার।
সোমবার রাতে আশুলিয়ার বাইপাইলস্থ এলাহী কমিউনিটি সেন্টারে শ্যাম বাজার ঘরনার সম্মেলনে হিজড়া সম্প্রদায়ের সদস্যরা সামাজিক ও আইনি অধিকার পাওয়ার দাবি তুললে এসব কথা বলেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি ও উত্তরণ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান।
এসময় তিনি আরও বলেন, সমাজের সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকেও সমানতালে এগিয়ে নিতে হবে। হিজড়া সম্প্রদায় আমাদের মতই রক্ত-মাংসের মানুষ হয়েও তারা প্রকৃতপক্ষে মানুষের অধিকার থেকে বঞ্চিত। জীবনধারনের সঠিক দিকনির্দেশনা না পাওয়ায় শুধুমাত্র বেঁচে থাকার তাগিদে তারা বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছে, আমাদের বিরাগভাজনের শিকার হচ্ছে। এজন্য তাদেরকে আলোর পথ দেখাতে হবে, যথাযথ কর্ম-সংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।
ইতোমধ্যে উত্তরণ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে আমরা উত্তরায় আপন হিজড়ার নেতৃত্বে একটি ফ্যাক্টরী ও টেইলার্স করে দিয়েছি। সেখানে ২৫ জন হিজড়া নিয়মিত কাজ করছে, যারা প্রত্যেকেই এখন নিজের পায়ে দাড়াতে শুরু করেছে।
এছাড়া আশুলিয়া, সাভার ও ধামরাইয়ে ৩টি পার্লার করে দিয়েছি। যেখানে অনন্যা, শাম্মী, সোহাগী ও মনিষা হিজড়ার নেতৃত্বে ২০ জন হিজড়া সদস্য কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছে। আমরা উত্তরায় কচি হিজড়ার নেতৃত্বে একটি ডেইরী ফার্ম করে দিয়েছি সেটাও বেশ ভাল করছে।
এর বাইরেও আমরা মানিকগঞ্জ ও রাজবাড়ীতে খুব শীঘ্রই  দুটি পার্লার চালু করার চিন্তা করছি। আমরা বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তের হিজড়াদের সাথে একটি সু-সম্পর্ক তৈরী করেছি এবং প্রতিনিয়ত তাদের কর্মমূখী হবার আগ্রহের বিষয়টি আমাদের অনুপ্রাণিত করছে।
বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সহযোগিতায় এবং আমাদের সীমিত ব্যবস্থাপনায় যতদূর পারি চেষ্টা করছি। আমাদের গৃহীত এই উদ্যোগগুলো সমাজের জন্য তথা রাষ্ট্রের জন্য একটি উদাহরণ হতে পারে কিন্তু সকলে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে না আসলে এই জনগোষ্ঠীকে পুরোপুরি পুনর্বাসন করা সম্ভব নয়।
ডিআইজি আরও বলেন, দেশের সকল নাগরিকের সমান অধিকার রয়েছে। সংবিধানে সকলের জন্য সে অধিকার রেখে গেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও সেই ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতে কাজ করে চলেছেন। আপনাদের সকলের সহায়তা পেলে উত্তরণ ফাউন্ডেশনও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে আশা রাখি। ‘সাংস্কৃতিক শিক্ষায় ডানা মেলুক শিকড়’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এবার উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এতে সহযোগিতা করেছে উত্তরণ ফাউন্ডেশন।
সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইদুর ইসলাম পিপিএম, ধামরাই উপজেলার চেয়ারম্যান মোয়াদ্দেস হোসেন, আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ রিজাউল হক দিপু , সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এএফএম সায়েদ, ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা, আশুলিয়া থানার ওসি তদন্ত জাভেদ মাসুদ প্রমুখ।
পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের কান্দাল সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত

মোঃ রেদওয়ানল হক ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার কান্দাল সীমান্তে ভারতীয় ...