সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো পাঁচ দিনব্যাপী দুর্গোৎসব

বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো পাঁচ দিনব্যাপী দুর্গোৎসব

মানিক দাস ॥ অসুর বিনাশিনী, শান্তি প্রদায়িনী দশ হস্ত ধারিণী দেবী দুর্গার চরণে মঙ্গলবার দশমীর দিনেও ভক্তবৃন্দ পরম শ্রদ্ধার সাথে অঞ্জলি গ্রহণ করেন। কামনা করেন সংসারের সুখ ও শান্তি। মহাষ্টমীর সকালে পূজা ম-পে যেরূপ ভিড় পরিলক্ষিত হয়েছিল। দশমী বিহিত পূজা শেষে পুতঃপবিত্র মন্ত্র পাঠের মধ্য দিয়ে প্রতিমা বিসর্জন প্রক্রিয়া শেষ হয়।

এই মহাআনন্দ উৎসবে হিন্দু সম্প্রদায়ের ভক্তবৃন্দ ব্যতীত ভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষজনও এ উৎসব উপভোগ করেছেন। তারাও পূজারীদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা আর উৎসাহে হিন্দু সমপ্রদায়ের এ উৎসব সার্বজনীন উৎসবে রূপ নেয়। সোমবার শহরের পূজাম-পগুলোতে রাত পর্যন্ত দর্শনার্থীরা প্রতিমা দর্শনের জন্যে ম-পে ম-পে ভিড় করেন। এ বছর প্রতিটি পূজাম-পই ছিলো দেখার মতো।

তবে শহরের পূজাম-পগুলো ছিলো অধিক সজ্জায় সুসজ্জিত। সুশোভিত হয়েছে সুউচ্চ তোরণ, প্যান্ডেল আর লাল-নীল রঙিন বাতি। সুউচ্চ আওয়াজ সম্পন্ন ইকোসাউন্ড সিস্টেমের আওয়াজের তালে তালে উঠতি বয়সের যুবকদের নৃত্যে দর্শনার্থীদের দর্শন কার্যক্রমের স্থান দখল করে নেয়ায় অনেক দর্শনার্থী দূরে দাঁড়িয়ে মাতৃদেবীকে প্রণাম করেন। অবশ্য এ ব্যাপরে মুখ খুলে কেউ কিছু বলার ইচ্ছাও পোষণ করেননি।

 

চাঁদপুর সদর উপজেলায় এ বছর ৩২টি ম-পে পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে চাঁদপুর পৌর এলাকায় রয়েছে ২৭টি। ৪/৫টি প্রতিমা ব্যতীত সবকটি প্রতিমাই বিসর্জন দেয়া হবে পূজারীদের সুবিধামত স্থানে। তবে চাঁদপুর শহরের কালী বাড়ি পূজাম-প, শ্রী শ্রী গোপাল জিউর আখড়া, সন্তোষীমাতা পূজা ম-প, মহাবীর রাধাকৃষ্ণ মন্দির পূজাম-প, ঘোষ পাড়া পূজাম-প, পালপাড়া পূজাম-প ও মিনার্ভা পূজাম-পের প্রতিমা বিসর্জন প্রক্রিয়া শহরের প্রাণকেন্দ্র চৌধুরী ঘাট এলাকায় সম্পন্ন হবে।

বিকেল ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে এ বিসর্জন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্যে প্রশাসন থেকে অনুরোধ করা হলেও এ বিসর্জন পর্ব শেষ হতে রাত ১০টা অবধি সময় লেগে যায়। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শহরের কালী বাড়ি মন্দির প্রাঙ্গন থেকে বিজয়া দশমীর দেবী দুর্গার প্রতিমূর্তি নিয়ে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। এর নেতৃত্বে ছিলেন জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ। এছাড়াও অন্যানের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর মডেল থানর অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিন, জেলা পুজা উদ্যাপন পরিষদের সহ-সভাপতি নরেন্দ্র নারায়ন চক্রবর্তী, অজিত সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক গোপাল সাহা, সদর থানা পুজা পরিষদের সভাপতি সুশীল সাহা, সাধারণ সম্পাদক লক্ষন চন্দ্র সূত্রধর, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিমল চৌধুরী, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক তমাল ভৌমিক, দপ্তর সম্পাদক রণজিৎ সাহা মুন্না, সহ দপ্তর সম্পাদক গোপাল দাস, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কার্তিক সরকার, মহিলা সম্পাদিকা কল্পনা সরকার, সহ প্রচার সম্পাদক নেপাল সাহা, ডাঃ মিলন সরকার, ডাঃ বিপ্লব দাস সহ আরও অনেকে।

দূর্গা প্রতিমা নিয়ে শোভা যাত্রা শহর পদক্ষিন শেষে রাতে চৌধুরী ঘাট এলাকা দিয়ে ডাকাতিয়া নদীতে বিসর্জণ দেওয়া হয়। দেবী দুর্গা এ বছর ঘোড়ায় আগমন ও ঘোড়ায় প্রস্থান করেছেন। অপরদিকে চাঁদপুর সদর উপজেলার কল্যানপুর ইউনিয়নের দাসাদী বড় সূত্রধর বাড়ির দুর্গা প্রতিমা বিকেল সাড়ে ৩টায় পুজা কমিটির সভাপতি বাবুল সূত্রধর, সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মন চন্দ্র সূত্রধর সহ ভক্ত বৃন্দের উপস্থিতিতে বিসর্জন দেওয়া হয়।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের কান্দাল সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত

মোঃ রেদওয়ানল হক ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার কান্দাল সীমান্তে ভারতীয় ...