সর্বশেষ সংবাদ
Home / বিনোদন / অনন্যা নাট্যগোষ্ঠীর গৌরবের ৪৫ বছর পূর্তিমঙ্গলবার ঘরজামাই ॥ কাল একক অভিনয় প্রতিযোগিতা

অনন্যা নাট্যগোষ্ঠীর গৌরবের ৪৫ বছর পূর্তিমঙ্গলবার ঘরজামাই ॥ কাল একক অভিনয় প্রতিযোগিতা

মানিক দাস ॥ অনন্যা নাট্যগোষ্ঠীর গৌরবের ৪৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে ৬ দিন ব্যাপী কর্মর্সূচি গ্রহণ করা হয়েছে।মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চে মঞ্চস্থ হবে মলিয়ের-এর কমেডি টাকা গোলাম সরওয়ারের রুপান্তরে ও শহীদ পাটওয়ারীর নির্দেশনায় ঘরজামাই। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে তা অনুষ্ঠিত হবে। পরদিন ২৩ অক্টোবর বুধবার গৌরবের ৪৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে শিশু কিশোর সহ নাট্যপ্রেমীদের একক অভিনয় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

আমরা অনন্যা। নাটক আমাদের রক্তঘামের ফসল। এই স্লোগানকে বুকে নিয়ে ১৯৭৪ সালের ২৪অক্টোবর অনন্যা চাঁদপুর নাট্যাঙ্গনে আবির্ভূত হয়। সেই থেকে এখন পর্যণÍ অনন্যার পথ চলা। প্রয়াত অ্যাড. হরিপদ চন্দ্র প্রয়াত অজিত কুমার মুকুল, মোঃ হানিফ পাটওয়ারী, সফিকুর রহমান ও শাহআলম স্বপন সহ এই ৫ জনের প্রচেষ্টায় ১৯৭৪ সালে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত অনন্যার প্রযোজনায় ৪৫টি নাটকের প্রায় সাড়ে ৪শ প্রদর্শনী সম্পন্ন হয়েছে।

এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রদর্শনী হয়েছে এস.এম সোলাইমান রচিত ইঙ্গিত নাটকটি। চাঁদপুর তথা বৃহত্তর কুমিল্লা নাট্য আন্দোলনের ক্ষেত্রে অনন্য রেকর্ড স্থাপন করেছে। অনন্যা নাট্যগোষ্ঠীর মধ্যে রয়েছে বিবর্ণ বিস্ময়, সুবচর নির্বাসনে ইঙ্গিত, তোমরাই, দ্যাশের মানুষ, রাক্ষুসী, ঘরজামাই, একাত্তরের পালা, রুপভান, নবাব সিরাজউদ্দৌলা, তেশরা এপ্রিল, জীবন যেখানে যেমন, উনিশ একাত্তর উল্লেখযোগ্য। অনন্যা ঢাকার জাতীয় নাট্য উৎসবে অংশগ্রহণ করে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে।

তাছাড়া চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ, বলাখাল, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর, পার্শ্ববর্তী জেলার কুমিল্লা, ফেনি, বিভাগীয় শহর চট্টগ্রাম, রংপুর সহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে নাটক মঞ্চস্থ করেছে। ১৯৭৮ সালের দ্বিতীয় জাতীয় নাট্য উৎসবে কুমিল্লা জেলার একমাত্র প্রতিনিধিত্ব করে ঢাকা শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে নাটক মঞ্চায়ন করে। ১৯৮২ সালে কুমিল্লা আন্ত জেলা নাট্য উৎসব, ১৯৮৪ সালে বর্ণচোরা আন্তঃ জেলার নাট্য উৎসব, ১৯৮৬ সালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত পক্ষকাল ব্যাপী সাংষ্কৃতিক উৎসবে অংশগ্রহণ, ১৯৮৯ সালে বর্ষাকালীণ নাট্য উৎসবে অংশগ্রহণ, ১৯৯৯১ সালে অনুপম নাট্য গোষ্ঠী ও গ্রুপ থিয়েটার সমন্বয় পরিষদের নাট্য উৎসব, প্রয়াত অজিত কুমার মুকুলের স্মরণে সম্মিলিত নাট্য গ্রুপ আয়োজিত নাট্য উৎসব, ১৯৯২ সালে বর্ণচোরা নাট্য গোষ্ঠীর নাট্য উৎসব, ১৯৯৩ সালে চাঁদপুর ড্রামার আন্তঃজেলা নাট্য উৎসব, ১৯৯৩ ও ৯৫ সালে কুমিল্লা জনান্তিক নাট্য সম্প্রদায়ের আন্তঃজেলা নাট্য উৎসব, ২০০০ সালে কুমিল্লা জনান্তিকের আন্তজেলা নাট্য উৎসব, চট্টগ্রামের বেশ কয়েকটি নাট্য উৎসবে অংশগ্রহণ করে চাঁদপুরের সুনাম বয়ে আনে। এসব উৎসবে অংশগ্রহণ ছাড়াও অনন্যা নাট্যগোষ্ঠী ছোট বড় নিজস্ব আয়োজনে ১২টি নাট্য উৎসবের আয়োজন করে। ১৯৮৬ সালে আন্তঃ জেলা নাট্য উৎসব, ১৯৯৯ সালে ২ যুগ পূর্তি, ২০০০ সালে রজত জয়ন্তী নাট্য উৎসব, ২০০১ সালে শীতকালীণ নাট্য উৎসব, ২০০৫ সালে ৩০ বছর পূর্তি নাট্য উৎসব, ২০১০-১১ সালে ৩ যুগ পূর্তি উপলক্ষে ৬ দিন ব্যাপী নিজস্ব প্রযোজনায় নাট্য উৎসব, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটারের অনুদানে অনন্যার তরুণ নাট্যকার জসিম মেহেদীর রচনায় ভাঙন নাটকটি ঢাকা মহিলা সমিতি মঞ্চে ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল হলে মঞ্চস্থ করা হয়। চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা মঞ্চে বিজয় উৎসব এবং সাংস্কৃতিক মাস ছাড়াও নিয়মিতভাবে দর্শনীর বিনিময়ে নাটক মঞ্চায়ন করে। মঙ্গলবার চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে হাসির নাটক ঘরজামাই মঞ্চস্থ হবে। শহীদ পাটওয়ারীর নির্দেশনায় নাটকটিতে অভিনয় করবেন শহীদ পাটওয়ারী, মৃনাল সরকার, রুনা আক্তার আশা, টুটন চক্রবর্তী, মারিয়া সহ আরও অনেকে।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

অশ্লীল সংলাপের জন্য ক্ষমা চাইলেন নায়িকা

বিনোদন ডেস্ক মুক্তি পেতে যাচ্ছে বলিউডের বহুল আলোচিত সিনেমা ‘পতি পত্নী অওর ...