সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / চাঁদপুর পুরাণ বাজারে দেদারছে চলছে রেনু পোনা নিধন

চাঁদপুর পুরাণ বাজারে দেদারছে চলছে রেনু পোনা নিধন

মানিক দাস ॥ প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও চাঁদপুর মেঘনা নদীতে দেদারছে চলছে রেনু পোনা নিধন। এতে করে বিভিন্ন প্রজাতীর মাছে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। আমাদের দেশে এখন আর গুটি কয়েক প্রজাতির মাছের দেখা মিললেও আগের মতো বিভিন্ন প্রজাতির মাছ এখন আর বাজারে উঠছেনা। তার কারণ সচেতন মহল মনে করেন, শীতের মৌসুম আসলে কিছু অসাধু লোকজন তাদেও পেশী শক্তি ব্যবহার করে নদীতে থাকা সকল প্রকার রেনু পোনা নিধনে লিপ্ত থাকে। তাদেরকে ভয়ে কেউ কিছু বলে না।

জেলেদের সাথে কথা বললে তারা জানান, শীত কাল আসলে আমাদেরকে দাদন দিয়ে চাঁদপুরে নিয়ে আসে মাছ ধরতে। নদীতে আমরা ৩ প্রকারের জাল দিয়ে নদীতে মাছ ধরি। তা হচ্ছে- বাতা, সাটিং ও গাদ জাল। এজালে বিভিন্ন প্রজাতির রেনু পোণা উঠে। ঐ রেনু পোনা নদীর তীরে আড়ৎদারদের কাছে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করি। আর আড়ৎদাররা সে মাছ ডাকে বিক্রি করে উভয় পক্ষ থেকে দালালি পায়।


আরো জানা যায়, এ সমস্ত পোণা নিধনের সাথে জড়িত রয়েছে প্রভাবশালী লোকজন। সরকারি দলের ছত্রছায়ায় প্রভাব খাটিয়ে তারা ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি দেখিয়ে তারা ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। পুরাণ বাজার ফাঁড়ির পুলিশ যেন দেখেও না দেখার ভান করছে। কোষ্টগার্ড নদীতে প্রতিনিয়ত অভিযান চালাচ্ছে। কিন্তু এ পর্যন্ত তারা রেনু পোণার উপর কোন অভিযানের খবর পাওয়া যায়নি। দালালরা শীতের সীজন আসলে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে জেলেদের দাদনদিয়ে নিয়ে আসে।

দিন ও রাতে ২বার তারা নদীতে গিয়ে মাছ ধরে পুরাণ বাজার হরিসভা মন্দিরের পেছনে নদীর তীরে ও মাস্টার বাড়ি ঘাট দিয়ে এ সব মাছ বিক্রি হয়। প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার বেচাকেনা হচ্ছে। দালালরা হচ্ছেঃ- লিলু হাওলাদার, শাদাত পাটোওয়ারী, মহসিন হাওলাদার, তাহের শেখ, জলিল মিজি, বিলাল শেখ, ইউছুব মিজি, কাসিম ছৈয়াল, ফজল মিজি, কালু হাওলাদার, সেলিম শেখ, লিটন গাজী, সুমন মিজি, কালা স্বপন, রিটু চৌধুরী, হাসেম মোল্লাসহ নাম জানা আরো অনেকে।
এসব দালদের রেনু পোনা নিধনের সংবাদ স্থানীয় প্রত্রিকায় প্রকাশ করলে দালালরা বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন প্রত্রিকার প্রতিনিধিকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেয় এবং বলে আমরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এ ব্যাবসা চালাচ্ছি। তাই প্রশাসন আমাদের কিছু বলেও না কোস্টগার্ড অভিযান দেয় না। নদীতে মাছ ধরতে আমাদের কোন বাধা নেই।
চাঁদপুর কোস্টগার্ডের সাথে কথা বললে জানান, এ বিষয়ে আমরা কিছু জানি না। মাছ হচ্ছে দেশের সম্পাদ। এ সম্পাদ রক্ষায় কোস্ট গার্ড সর্বদা সজাগ। আমরা অতিশ্রীয় এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। কাউকে ছাড় দেব না।
এবিষয়ে স্থানীয়রা বলেল, এসকল অসাধু ব্যবসায়ীদের জন্য আমরা এখন আর বাজারে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ দেখি না। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হলে মাছ কি জিনিস আমাদেরকে ছবিতে দেখতে হবে। তারা আরো বলেন পুরাণ বাজার ফাঁড়ি নাকের ডগায় এ রেনু নিধন হচ্ছে। তারা কাউকে কিছু বলে না। আমাদের মনে হয় তারা অসাধু দাদনদারদের কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে দেখেও চোখ বন্ধ কওে রয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

নবাবগঞ্জে ট্রাক চাপায় আদিবাসী বৃদ্ধ নিহত

নবাবগঞ্জদিনাজপুরপ্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে ট্রাক চাপায় শিবলাল হাসদা(৫০) নামে এক আদিবাসী বৃদ্ধ নিহত ...