সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / স্বামীর তিন তালাক, আটকে রেখে শ্বশুর করে সর্বনাশ!

স্বামীর তিন তালাক, আটকে রেখে শ্বশুর করে সর্বনাশ!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
স্বামীর তিন তালাক দেয়ার পর এক নারী গণলালসার শিকার হয়েছেন। মাথায় গান ঠেকিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজনরাই তার সর্বনাশ করে বলে অভিযোগ। এ ঘটনায় মূল অভিযুক্ত শ্বশুর।

ভারতের রাজস্থানের আলওয়ার জেলার চোপানাকি নামক অঞ্চলে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে বিয়ে হয় ওই নারীর। এরপর একটি কন্যা সন্তানেরও জন্ম দেন। এরপর থেকেই নানাভাবে ওই নারীর ওপর অত্যাচার শুরু হয়। কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ার কারণে মহিলার ওপর অত্যাচারের পরিমাণ আরও বেড়ে যায়। কিন্তু অত্যাচারের পরিমাণ বাড়তে থাকলে একদিন এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেন ওই তরুণী। এরপর গত নভেম্বর থেকে ওই নারীকে একটি ঘরে বন্দি করে রাখে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। আটকে রেখেই তার ওপর অত্যাচার চলতো।

নভেম্বর মাসের একদিন ওই নারীর স্বামী মাতাল হয়ে বাড়ি ফিরে তাকে তিন তালাক দেয়। এরপরই তার শ্বশুর ও অন্য এক আত্মীয় ঘরে ঢোকে। পরে শিশুকন্যাটিকে লাথি মেরে ঘরের বাইরে বের করে দিয়ে গান পয়েন্টে একের পর এক এসে তরুণীর সর্বস্ব লুটে নেয়। যদিও পরে কোনোভাবে লুকিয়ে পালিয়ে বাঁচেন ওই তরুণী।

ওই ঘটনার চারদিন পরে পুলিশে ফোন করেন ওই তরুণী। তার অভিযোগের ভিত্তিতে দায়ের করা হয়েছে মামলা। স্থানীয় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, এই ঘটনার পরেই একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে তরুণীর স্বামী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে। তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লন্ডনে বাংলা ভাষা দ্বিতীয়

ক্রাইম এ্যকসান ডেস্ক যুক্তরাজ্যের লন্ডনে ইংরেজির পরই যে ভাষা সবচেয়ে বেশি বলা ...