সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / জামিন নিয়েই ফরিদগঞ্জ থানার ওসির কাছে মাদকাশক্ত যুবকের আত্বসমর্পন

জামিন নিয়েই ফরিদগঞ্জ থানার ওসির কাছে মাদকাশক্ত যুবকের আত্বসমর্পন

এমকে মানিক পাঠান
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার হর্নি দূর্গাপুর গ্রামের যুবকটির নাম বিল্লাল হোসেন (৩৪)। সে ব্যবসা করতেন। এক পর্যায়ে মাদকাশক্ত হয়ে পড়ে সে। মাদক আইনে দুটি মামলার আসামী ছিলেন। অবশেষে বিল্লাল বুঝতে পেরেছে মাদক সেবনের দ্বায়ে সে ভুল পথে যাচ্ছিল। নিজের ভুল পথ থেকে ফিরে এসে স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে চায়। যার ফলে মাদক নিারময় কেন্দ্রে চিকিৎসা শেষে আদালত থেকে জামিন নিয়ে সরাসরি চলে আসে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিবের কাছে। ওসি আব্দুর রকিব তাৎক্ষনিক বিল্লালের হাতে ফুল দিয়ে বরন করে নিয়ে তার নতুন ভাবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসায় ধন্যবাদ জানান। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার সকালে ।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ফরিদগঞ্জের ১৪ নং (দক্ষিন) ইউনিয়নের হর্নিদূর্গাপুর গ্রামের সফিউল্লা বেপারী ছেলে বিল্লাল হোসেন ব্যবসা করতেন। এক পর্যায়ে বিল্লাল মাদকাশক্ত হয়ে পড়ে। তার বিরুদ্ধে ফরিদগঞ্জ থানায় মাদকের দুটি মামলা ছিল। আত্বীয় স্বজনরা বিল্লাল হোসেনকে কুমিল্লায় মাদক নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসা শেষে গতকাল বুধবার চাঁদপুরের আদালতের মাধ্যমে জামিনে মুক্ত হয়ে এদিনই সরাসরি থানায় চলে আসে। তারই এলাকার ইউপি মেম্বার টেলুকে নিয়ে ওসি আব্দুর রকিবের কাছে বিল্লাল হাজির হয় থানায়।

এ সময় বিল্লাল মাদকের বিরুদ্ধে তার ক্ষতির অভিব্যক্তির কথা জানিয়ে বলেন, এই মাদক আমার জীবনের অনেক ক্ষতি করেছে। তাই মাদক ছেড়ে আজ থেকে আমি স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে চাই। মাদকের বিরুদ্ধে বিল্লালের এমন আত্ব উপলব্ধির কথা শুনে ওসি আব্দুর রকিব তাৎক্ষনিক ফুল দিয়ে বিল্লালকে অভিনন্দন জানান। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিক ছাড়াও উপজেলার শোল্লা এলাকার এক প্রবাসী তরুন সমাজ সেবক মোঃ হাছান মিষ্টি এনে বিল্লাল সহ সবাইকে মিষ্টি মুখ করান।
স্থানায় একটি সুত্র জানায়, মাদকের বিরুদ্ধে ওসি আব্দুর রকিবের সাঁড়াশী অভিযানে মূলত এখন মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীরা কোনসাঠা হয়ে আছে। যার ফলশ্রুতিতে ইতিপূর্বে আত্বসমর্পন কারী অন্যান্য মাদকসেবীর মতো বিল্লাল হোসেনও গতকাল থানার ওসির কাছে হাজির হয়ে মাদকের বিরুদ্ধে নিজের নানা ক্ষতি সহ আত্বউপলব্ধির বর্ননা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে।
এ নিয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রকিব এ প্রতিনিধিকে বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সবাই সচেতন থাকলে চীরতরে মাদক নির্মূল করা কোন কঠিন বিষয় নয়। মরন ব্যাধী মাদকে তার ক্ষতির বর্ননা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে বিল্লাল। এটা ভুক্তভোগী পরিবার সহ সকলের সচেতনার কারনে আমাদের সবারই অর্জন বলে আমি মনে করি।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মতলব দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামীলীগের শহিদ দিবস পালন

মতলব প্রতিনিধি: মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস মতলব দক্ষিণ উপজেলা ...