সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / বাগাতিপাড়া উপজেলায় সাব-রেজিষ্ট্রারের অপসারনের দাবিতে দুই সপ্তাহ ধরে চলছে কলম বিরতি

বাগাতিপাড়া উপজেলায় সাব-রেজিষ্ট্রারের অপসারনের দাবিতে দুই সপ্তাহ ধরে চলছে কলম বিরতি

আরিফুল রুবেল,স্টাফ রিপোর্টারঃনাটোরের বাগাতিপাড়ায় দলিল লেখককে কান ধরে দাঁড়িয়ে রাখার অভিযোগ উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রারের বিরুদ্ধে। আর তারই প্রতিবাদে সাব-রেজিষ্ট্রারের অপসারনের দাবিতে দুই সপ্তাহ ধরে কলম বিরতি পালন করছেন উপজেলা দলিল লেখক সমিতি। তবে এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং বানোয়াট বলে দাবী করেছেন উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রার নাহিদুজ্জামন। দলিল লেখকদের অভিযোগ উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রার নাহিদুজ্জামান বিভিন্ন সময় তার এজলাসের মধ্যে দলিল লেখকদেরকে অপমান অপদস্ত করেন এছাড়া দলিল ছিড়ে ফেলাসহ দলিল লেখককে কান ধরে দাঁড়িয়ে রাখার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। তার এমন খারাপ আচরনের প্রতিবাদে সাব-রেজিষ্ট্রারকে অন্যত্র বদলির দাবিতে গত ১১ ফেব্রুয়ারী থেকে কলম বিরতি পালন করছেন উপজেলা দলিল লেখক সমিতির ৯০ জন সদস্য।
এছাড়া জেলা রেজিষ্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ এবং সেই অনুলিপি আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়, স্থানীয় সাংসদ এবং মহা পরিদর্শক নিবন্ধন কে অনুলিপি পাঠিয়েছেন তারা। এদিকে সেবা গ্রহিতারা দলিল সম্পাদন করতে এসে যেমন ভোগান্তিতে পড়ছে তেমনি রাজস্ব আয় থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। এব্যাপারে ভুক্তভুগী দলিল লেখক শাহীন আলী বলেন, দলিলে ভুল আছে এমন অভিযোগে সাব-রেজিষ্ট্রার নাহিদুজ্জামান এজলাসের মধ্যে সকলের সামনে কান ধরে দাঁড়িয়ে রাখে এবং লাঠি দিয়ে তাকে ছুড়ে মারে। দলিল লেখক মশিউর রহমান বলেন, দলিল সম্পাদন করতে এজলাসে গেলে দলিলে ক্রটি আছে বলে ক্ষিপ্ত হয়ে দলিল কলম দিয়ে কাটাকাটি করেন এবং আরও ক্ষিপ্ত হয়ে দলিলটি ছিড়ে ফেলেন।

সিনিয়র দলিল লেখক আব্দুল কুদ্দুস বলেন, এজলাসে দলিল নিয়ে গেলে প্রয়োজনীয় একটি কাগজ কম থাকায় সাব-রেজিষ্ট্রার তাকে থাপ্পড় মারতে উঠে এবং অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। দলিল লেখক জিন্নাত আলী ও আবুবক্কর সিদ্দিক অভিযোগ করেন, সাব-রেজিষ্ট্রার এখানে আসার পর থেকেই প্রবীন দলিল লেখকদের ছোট খাটো ভুল হলেই মারমুখি আচরন করে। উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আরশাদ আলী এবং সাধারন সম্পাদক আনিসুর রহমান বলেন, সাব-রেজিষ্ট্রারের মারমুখি আচরন, দলিল লেখকদের অপমান অপদস্ত করায় তার অপসারনের দাবিতে গত ১১ ফেব্রুয়ারী থেকে তারা কলম বিরতি পালন করছেন। বর্তমান সাব-রেজিষ্ট্রারের কাছে তারা কোন দলিল সম্পাদন করবেন না।

এছাড়া জেলা রেজিষ্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন এবং সেই অনুলিপি আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়, স্থানীয় সাংসদ এবং মহা পরিদর্শক নিবন্ধন কে অনুলিপি পাঠিয়েছেন। তবে এমন অভিযোগ বিত্তিহীন এবং বানোয়াট বলে দাবী করে উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রার নাহিদুজ্জামন বলেন দলিল নির্ধারিত মূল্যে সম্পাদ করতে বলায় দলিল লিখকদের সাথে তার কিছু মতপার্থক্য চলছে।

সম্পত্তি হস্তান্তরের ক্ষেত্রে সরকারি নির্ধারিত যে ফি নির্ধারন ছিল বর্তমানে নতুন গেজেটে সেটা কমে এসেছে। সে ব্যাপারে দলিল লেখকদের অবগত করতে গেলে তারা সেটা মানতে চাইনা। তিনি আরও বলেন আমি চুপ থাকলে তারা দলিল দিবে আর চুপ না থাকলে আমার কাছে তারা দলিল দিবেননা।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

মতলব উত্তরে মুক্তার গাজীর অর্থায়নে খাদ্য সহায়তার কার্যক্রমের উদ্ভোদন

নিজস্ব প্রতিনিধি: মতলব উত্তর উপজেলায় সম্ভাব্য আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী মুক্তার হোসেন ...