সর্বশেষ সংবাদ
Home / স্বাস্থ্য / এলাকাবাসী সহ ডাক্তার ও নার্সদের মানববন্ধন  ডাঃ সিরাজুলের বদলী বাতিলের দাবী! 

এলাকাবাসী সহ ডাক্তার ও নার্সদের মানববন্ধন  ডাঃ সিরাজুলের বদলী বাতিলের দাবী! 

   নাজমুল ইসলাম সবুজ বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ
বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ সিরাজুল ইসলামের বদলির আদেশ বতিলের দাবীতে পৃথক মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী, ডাক্তার ও স্টাফ নার্সরা। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মানব কল্যান সোসাইটির ব্যানারে এলাকাবাসী এবং একই দিন দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে ডাক্তার ও স্টাফ নার্স এ মানববন্ধন করেন। এতে উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ নেয়।
মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, মানব কল্যান সোসাইটির শরণখোলা শাখার সদস্য সচিব সুরাইয়া আক্তার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মাসুম বিল্লাহ, শ্রমিকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম মিরাজ, তাতীলীগের আহবায়ক জিয়াউল তালুকদার প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘদিন থেকে ডাক্তার সংকট চলে আসছে। এর মধ্যে বর্তমান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন প্রশাসনিক কাজ ছাড়া কোন রোগী দেখেন না। এ অবস্থায় করোনা ভাইরাস সংকট মোকাবেলায় পাঁচজন ডাক্তার হিমশিম খাচ্ছেন। এমন সময় কর্তব্য পরায়ন মেডিকেল অফিসার ডাঃ সিরাজুল ইসলামকে বাগেরহাট সদরে বদলি করায় এলাকায় চিকিৎসা সংকট দেখা দিবে। তারা অবিলম্বে ওই ডাক্তারের বদলির অদেশ প্রত্যাহারের দাবী জানান।
অপরদিকে, একই দাবীতে হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সরা যৌথ মানববন্ধন করেন। অবিলম্বে ওই বদলীর আদেশ  বাতিলের  দাবী করেন। অন্যথায় কর্মবিরতি সহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করবেন তারা।
 উল্লেখ, তরুন চিকিৎসক ডাঃ সিরাজুল ইসলাম শরনখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্য যোগদান করে স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ ফরিদা ইয়াছমিনের রোষানলে পড়ে। এতে হাসপতালের অন্য কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
ডাঃ সিরাজুল ইসলাম সহ হাসপাতালের ষ্টাপরা জানান, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার ফরিদা ইয়াসমিন যোগদান করার পর রোগী ও তাদের স্বজন, জনপ্রতিনিধি সহ হাসপাতালে কর্মরত ষ্টাপদের নানা দুর ব্যবহার করে চলছেন এবং অফিস টাইম ছাড়াও ডাক্তারদের কারনে অকারনে বসিয়ে রাখেন লোকজনের মাঝে দমক দেন। বিভিন্ন ভাবে নাজেহাল করার প্রতিবাদ করার কারনে স্বাস্থ্যকর্তার রোষানলে পড়েন ওই চিকিৎসক। এছাড়া কথায় কথায়  তিনি  (ষ্টাপদের) চাকুরি খেয়ে ফেলার হুমকি দেন। তার কোন কথার কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে বিভিন্ন ভাবে নাজেহাল করেন। ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে সর্বদা ষ্টাপদের দাবড়িয়ে বেড়ান।
হাসপাতালের ১/২জন ষ্টাপকে লাঠিয়াল হিসেবে ব্যবহার করে সরকারি সম্পদ লুটপাট চালাচ্ছেন। এছাড়া তিনি কোন রোগী দেখেন না। কেউ দেখাতে চাইলে বলেন, রোগী দেখার দ্বায়িত্ব তার নাই। যার ফলে দেশের এমন দুর্যোগ মুহুর্তেও সেবা বঞ্চিত হচেছ উপজেলার সাধারন মানুষ। ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিনের সর্বদা দুব্যবহারের কারনে হাসপাতালের পরিবেশ দিন দিন খারাপ হচ্ছে।
 তবে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ডাঃ সিরাজুল ইসলামের  বদলী উর্ধতন কর্তৃপক্ষে সিদ্বান্ত। সে ক্ষেত্রে আমার কোন হাত নেই। এছাড়া ষ্টাপদের অন্য অন্য অভিযোগের কোন সত্যতা নেই। এ বিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ হুমুায়ুন কবির বলেন, ওই চিকিৎসককে বদলী করা হয়নি, করনো প্রতিরোধে তাকে সাময়িক জেলা সদর হাসপাতালে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনকে হো‌‌মিওপ্যা‌থিক ক‌লেজ এন্ড হাপসপাতা‌ল পক্ষ থেকে ঔষধ প্রদান

মানিক দাস।। চাঁদপুর হোমিওপ্যা‌থিক ক‌লেজ এন্ড হাপসপাতা‌ল শহরা‌স্তির পক্ষ থে‌কে জেলা প্রশাস‌কের ...