সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / ঠাকুরগাঁও সীমান্তে নদী থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

ঠাকুরগাঁও সীমান্তে নদী থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

মোঃ আবুল হাসান ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের রত্নাই সীমান্তে নাগর নদী থেকে এক বাংলাদেশি যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার সকালে নদীর ধারে ভেসে আসা ওই বাংলাদেশীর মরদেহ দেখে রত্নাই ক্যাম্পের বিজিবি ও পুলিশকে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম মামুন (৩২)। তিনি বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের ঠকবস্তী গ্রামের সাদেকুল ইসলামের ছেলে (ইউপি সদস্য শামসুল আলমের নাতী)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আমজানখোর ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আকালু।

স্থানীয়রা জানায়, শনিবার (১ আগষ্ট) রাতে ৪ জনের একটি দল গরু আনতে অবৈধ পথে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যায়। রবিবার (২ আগস্ট) গভীর রাতে ফেরার সময় বাংলাদেশের রত্নাই এবং ভারতের সোনামতি সীমান্তে ৩৮২(৪) এস পিলারের দক্ষিণ শেষ প্রান্তে ভারতীয় আয়রন ব্রীজের নীচে গেলে বিএসএফ সদস্যরা তাদের ওপর পাথর ছুড়ে মারে এ সময় পাথরের আঘাতে আল-মামুন নিহত হন এবং ঠকবস্তি পশ্চিম হরিনমারী এলাকার মোহাম্মদ আলী ওরফে বম (২৮)সহ দুই জন আহত হন।

পরে আহতরা পালিয়ে আসলেও নিহত আল-মামুনের লাশ সোমবার(৩ আগষ্ট) সাড়ে ৮টার দিকে লাশ সীমান্তের মরাধর গ্রামের পশ্চিম পার্শ্বের ৩৮২(৩)এস পিলার এলাকায় নাগর নদীতে ওই ব্যক্তির লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা বিজিবি ও পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ৫০ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল শহিদুল ইসলাম জানান, রত্নাই সীমান্তের মরাধর গ্রামের পশ্চিম পার্শ্বের ৩৮২(৩)এস পিলার এলাকায় নাগর নদীতে ওই ব্যক্তির লাশ ভাসতে দেখার বিষয়টি শুনেছি। বিজিবি জোয়ানরা সেখানে আছে। বিস্তারিত জানবার জন্য বিএসএফ’র সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ে ভারীবর্ষণে পানিতে ভেসে গেল কোটি টাকার পাকা রাস্তা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায়  ভারীবর্ষণে পানিতে ভেসে গেছে কোটি টাকা দিয়ে ছয় মাস আগে নির্মাণ করা জাউনিয়া-সাবাজপুর গ্রামের চলাচলের একমাত্র পাকা রাস্তা। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে জাউনিয়া, সাবাজপুরসহ কয়েকটি গ্রামের হাজার মানুষ। স্থানীয়রা জানায়, মাটি ভরাট করে উঁচু না করে রাস্তা নির্মাণ ও নিম্নমানের পাকাকরণ কাজের জন্য দ্বিতীয় বারের মত সাবাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পার্শের রাস্তাটি পানিতে ভেসে গেছে। এতে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে মূল শহরের সাথে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে জাউনিয়া, সাবাজপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের। সাবাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ জানান, রাস্তাটি পাকাকরণ করার এক বছরও হয়নি। অতিবৃষ্টির ফলে প্রায় ৮০ শতাংশ রাস্তা ভেসে গেছে পানিতে। রাস্তাটি সংস্কারের জন্য স্থানীয় প্রকৌশলীকে বলা হয়েছে। দ্রুত সংস্কার না করা গেলে বিদ্যালয়ে যাতায়াতসহ স্থানীয়দের চরম ভোগান্তি পোহাতে হবে। উপজেলা প্রকৌশল সুত্রে জানা যায়, গেল ছয় মাস আগে প্রায় কোটি টাকা বরাদ্দে জাউনিয়া বাজার থেকে সাবাজপুর গ্রাম পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তা পাকাকরণ করা হয়। কাজটি সম্পন্ন করার সময় স্থানীয়দের দাবি ছিল রাস্তাটি উঁচু করে মাটি ভরাটের পর পাকা কারণ করার। তবে সেটি না হওয়ার কারণে পানিতে ভেসে গেছে সব। এবিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মাইনুল ইসলামের সাথে ...