সর্বশেষ সংবাদ
Home / অপরাধ / শাহনাজ হত্যাকান্ডের সঠিক বিচার পেতে চায় পিতা শাহ আলম

শাহনাজ হত্যাকান্ডের সঠিক বিচার পেতে চায় পিতা শাহ আলম

মানিক দাস ॥ নোয়াখালী সদর উপজেলার নোয়ান্ন ইউনিয়নের করমুল্লাপুর গ্রাম থেকে বস্তাবন্দি গলাকাটা মৃত তরুনীর পিতা সঠিক বিচার পেতে পুলিশের প্রতি সু দৃষ্টির কামনা করেছে। ২৯ সেপ্টেম্বর সকালে নোয়াখালী সদর উপজেলার নোয়ান্ন ইউনিয়নের করমুল্লাপুর গ্রামের ডোবা থেকে বস্তাবন্দি গলাকাটা মৃত শাহনাজের লাশ উদ্ধার করেছিল সুধারাম থানা পুলিশ। প্রথমে অপরিচিত থাকলে ও পরে তরুনীর পরিচয় পাওয়া যায়। ১ অক্টোবর সুধারাম থানা পুলিশ হত্যার ঘটনার সাথে জড়িত বেগমগঞ্জ উপজেলার কেন্দুরবাগ এলাকা থেকে অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করে পুলিশ। নিহত শাহানাজ (১৮) চাঁদপুর জেলা সদরের পুরান বাজার কবরস্হান এলাকার বাসিন্দার শাহ আলমের মেয়ে। শাহ আলম চাদপুর শহরের কালিবাড়ী মোড় চাঁদপুর হোটেল এ- রেস্টুরেন্টে বাবুর্চির চাকুরী করেন। শাহনাজ হত্যা গ্রেফতারকৃতরা হলো- বেগমগঞ্জ উপজেলার কেন্দুরবাগ গ্রামের বাগারি বাড়ির মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে ইয়াছিন আরাফাত (২৬), একই এলাকার চৌকিদার বাড়ির মো.আব্দুল মালেকের ছেলে মো. রাসেল (২৪)।

সুধারাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কচুয়া উপজেলার বাসিন্দার নবীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহত শাহানাজের সাথে মোবাইল ফোনে ইয়াছিন আরাফাতের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে এর আগে কয়েকবার শাহানাজ চাঁদপুর থেকে নোয়াখালীতে আসে। মগখে সুপারব্লু দিয়ে আটকিয়ে দেয়া হয়।মুখ মন্ডল থেতলে দেয়া হয়।গত ২৯ সেপ্টেম্বর নোয়াখালী আসে শাহানাজ। এক পর্যায়ে শাহানাজ ইয়াছিনকে বিয়ে করতে চাপ প্রয়োগ করে। বিয়ে করার জন্য চাপ সৃস্টি করায় তাকে হত্যা করা হয়।পা বেঁধে শাহনাজকে গলা কেটে হত্যা করে। পরে মরদেহ বস্তায় ঢুকিয়ে নোয়ান্ন ইউনিয়নের করমুল্লাপুর গ্রামের একটি ডোবার মধ্যে ফেলে দিয়ে আসে।খুন হওয়া শাহনাজের পিতা শাহ আলম সুধারাম থানার থানার অফিসার ইনচার্জ নবীর হোসেনের প্রতি কৃতঙ্ঘতা প্রকাশ করেন।একই সাথে সঠিক বিচার পাওয়ার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ করেছেন।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের দিন কাটে বিচার শালিস করে

আরিফুল রুবেল,স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশের উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের দিন কাটে বিচার শালিস করে। ...