সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / ফরিদগঞ্জ  করোনা কালিন সময়ে  কৃষি ব্যাংকের নিরবিচ্ছিন্ন সেবা ও মজিব বর্ষে ব্যাপক কৃষি,উদ্যোগতা ঋন বিতরন।

ফরিদগঞ্জ  করোনা কালিন সময়ে  কৃষি ব্যাংকের নিরবিচ্ছিন্ন সেবা ও মজিব বর্ষে ব্যাপক কৃষি,উদ্যোগতা ঋন বিতরন।

স্টাফ রিপোর্টার :
ফরিদগঞ্জ  করোনা কালিন সময়ে কৃষি ব্যাংকের নিরবিচ্ছিন্ন সেবা ও মজিব বর্ষে ব্যাপক কৃষি,উদ্যোগতা ঋন বিতরন।
ফরিদগঞ্জ উপজেলার সরকারী ও বেসরকারী ব্যাংক শাখাগুলোর মধ্যে তুলনা মূলক হারে সেবার মানে কৃষি  ব্যাংক পূর্বের তুলনায় সেবার মান ব্যাপক হারে হ্রাস পেয়েছে ।
 সরেজমিন ব্যাংকের গ্রাহক ও ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে  এ বিষয় জানা গেছে ।
বিশ্ব ব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় ব্যাংক বীমা প্রতিষ্ঠা বন্ধ  ঘোষনা করা হয়েছিলো  কিন্তু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শত বার্ষিকী হওয়ায় কৃষি ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীরা দিনরাত জীবনের ঝুকি নিয়ে নিরবচ্ছিন্ন  সেবা দিয়ে গেছেন।
তখনও কৃষি ব্যাংক সেবা দিয়েছে দেওয়ার সাথে সাথে সাম্প্রতিক সময়ে কাজের পরিধি বিস্তর হওয়া সর্তেও এ ব্যাংক শাখায় কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নিরলসভাবে কর্ম তৎপর থাকায় সরকারী ও বেসরকারী গ্রাহকরা সন্তোষ প্রকাশ করেছে।
বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী সেবা নিতে আসা গ্রাহকরা জানান পূর্বের তুলনায় বর্তমানে সেবার মান অনেকাংশে উন্নতি হয়েছে ।
এ বিষয়ে শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ জাহিদুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, করোনা মহামারি সময়ে  ২৫ মার্চ/২০২০ইং হতে অদ্যাবধি নিরবচ্ছিন্ন ভাবে আমরা সেবা দিয়ে চলছি।
আমার ব্যাংক শাখার সকল  কর্মকর্তা কর্মচারী সতর্কতা মেনে গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করেছি।
 তিনি আরোও জানান, করোনা কালিন সময়ে উপজেলার বিভিন্ন সরকারী- বেসকারী ব্যাংকগুলো সাপ্তাহে ২/৩ দিন চললেও  ফরিদগঞ্জ কৃষি ব্যাংক শাখা করোনা পূর্ব সময়ের মতো পুরোপুরি সেবা দিয়ে গেছে।
এ ব্যাংক শাখায় ১০ হাজার গ্রাহক রয়েছে।
 ব্যাংক শাখা থেকে বিভিন্ন  ভাতাসহ  সব মিলে  ৮/১০ ধরণের সরকারী ভাতা প্রদান করা হয়ে থাকে। তাছাড়া প্রতিদিন এক থেকে দেড়শতাধীক অনিয়মিত গ্রাহক সেবা নিচ্ছে।
গ্রাহক তুলনায় জনবল সংকট রয়েছে। চলমান সেবার মানকে আরোও ভালো করার জন্য অন্তত ৪/৫ জন লোকবল বৃদ্ধি করা দরকার।
 করোনা কালিন সময়ে পূর্ব থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে কৃষি ব্যাংক ফরিদগঞ্জ শাখা সরকারি ক্ষাতে ১৮টি প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৪৫ লাখ টাকার ঋন ৪% সুদে বিতরন করা হয়েছে।
১৩৭ জনের মাঝে ৮০ লাখ টাকা ফসলি ঋন বিতরণ করেছেন  এই শাখা।
বিশাল কর্মজজ্ঞ মাত্র ৭ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী দিয়ে চালানো কষ্ট সাধ্য।
তাই সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ এ ব্যাংক শাখায় আরোও কিছু জনবল ও মাঠ কর্মী দিয়ে এ শাখার সমৃদ্ধি করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
গ্রাহক  সেবার মান আরোও বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে যুগোপযোগী করার চেষ্টায় সতেষ্ঠ থাকবে।
পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

Leave a Reply

x

Check Also

চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত

সজীব খান ঃ  চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ...